ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ফাউন্ডেশন (এসএমইএফ) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৫ জুলাই ২০২১

১৪ জুলাই ২০২১ এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মোঃ মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় শিল্পনীতিতে সিএমএসএমই’র সংজ্ঞা পুনর্নির্ধারণের লক্ষ্যে অংশীজনদের সাথে অনলাইনে মতবিনিময় সভা আয়োজন


প্রকাশন তারিখ : 2021-07-14

১৪ জুলাই ২০২১ এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মোঃ মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় শিল্পনীতিতে সিএমএসএমই’র সংজ্ঞা পুনর্নির্ধারণের লক্ষ্যে অংশীজনদের সাথে অনলাইনে মতবিনিময় সভা আয়োজন

 

 

জাতীয় শিল্পনীতি-২০২১ এ সিএমএসএমই’র  সংজ্ঞা পরিমার্জনের লক্ষ্যে এসএমই ফাউন্ডেশন কর্তৃক অংশীজন সভা আয়োজন

১৪ জুলাই ২০২১, বুধবার, সকাল ১০:৩০টা, ভার্চ্যুয়াল প্ল্যাটফর্ম, এসএমই ফাউন্ডেশন

 

 

শিল্প মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রণীতব্য জাতীয় শিল্পনীতি-২০২১ এ কুটির, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (সিএমএসএমই)-এর সংজ্ঞা পরিমার্জনের লক্ষ্যে ১৪ জুলাই ২০২১ বুধবার সকাল ১০:৩০টা থেকে বিকাল ১.০০টা সময়ব্যাপী ভার্চ্যুয়াল প্ল্যাটফর্মে এসএমই ফাউন্ডেশন কর্তৃক একটি অংশীজন সভা আয়োজন করা হয়েছে। এসএমই ফাউন্ডেশন এর চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মোঃ মাসুদুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মূল আলোচ্য বিষয়টি উপস্থাপন করেন এসএমই ফাউন্ডেশন এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোঃ মফিজুর রহমান এবং সঞ্চালনা করেন ফাউন্ডেশন মহাব্যবস্থাপক জনাব মোঃ সিরাজুল হায়দার এনডিসি। সভায় শিল্প মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বাংলাদেশ ব্যাংক প্রতিনিধি, সরকারি-বেসরকারি ব্যাংক প্রতিনিধি, এসএমই অ্যাসোসিয়েশন ও ট্রেডবডিজ প্রতিনিধি, গবেষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, এসএমই উদ্যোক্তা প্রতিনিধি, এসএমই ফাউন্ডেশনের পরিচালক পর্ষদ ও সাধারণ পর্ষদ সদস্য এবং এসএমই ফাউন্ডেশনের উর্ধতন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের শতাধিক প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন।

 

এসএমই খাতের প্রকৃত উন্নয়নের জন্য জাতীয় শিল্পনীতি-২০১৬ এ উল্লিখিত কুটির, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (সিএমএসএমই)-এর সংজ্ঞায় জনবল সংখ্যা ও বিনিয়োগ সীমা কমিয়ে জাতীয় শিল্পনীতি-২০২১ এ সিএমএসএমই’র সংজ্ঞা নির্ধারণের প্রস্তাব করেন এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোঃ মফিজুর রহমান। তাঁর উপস্থাপিত প্রস্তাবনার পক্ষে-বিপক্ষে অনেকে মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করে মতামত ব্যক্ত করেন। বর্তমান বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা বিবেচনায় ‘জনবল' ও 'বিনিয়োগের পরিমাণ' এর পাশাপশি 'বার্ষিক বিক্রয় টার্নওভার' এর ভিত্তিতে জাতীয় শিল্পনীতি ২০২১ এ শিল্পের সংজ্ঞা নির্ধারণ করা প্রয়োজন মর্মে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এর প্রতিনিধি উল্লেখ করেন; যদিও বাংলাদেশ ব্যাংক প্রতিনিধি বিষয়টিতে ভিন্নমত প্রকাশ করেন। সভায় উপস্থিত অধিকাংশ প্রতিনিধি উৎপাদন ও সেবামূলক খাতের সাথে ব্যবসা খাতের সমন্বয় সাধন এবং আর্থিক খাতে গতিশীলতা আনয়নের নিমিত্ত ব্যবসা (ট্রেডিং) খাতের সংজ্ঞাও জাতীয় শিল্পনীতিতে অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে মর্মে উল্লেখ করেন। সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ মাসুদুর রহমান প্রাণবন্ত আলোচনার জন্য উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন বৈশ্বিক করোনা মহামারীর কারণে সারা পৃথিবীর মত বাংলাদেশেও সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত খাত হচ্ছে এসএমই খাত। আগামীতে অর্থাৎ কোভিডউত্তর পৃথিবীতে এই কোভিডকালীন ক্ষতি বিবেচনার পাশাপাশি গত দশ বছরে আমাদের অর্থনীতির যে সম্প্রসারণ হয়েছে ও যেসব নতুন সতুন সম্ভাবনা তৈরী হয়েছে সেসব বিবেচনায় রেখে আমাদের এসএমই’র নতুন সংজ্ঞা প্রণয়ন করতে হবে। তিনি আরো বলেন, সভায় প্রাপ্ত মতামতের সমণ্বয়ে সংশোধিত সিএমএসএমই’র সংজ্ঞা বিষয়ে পুনরায় সংশ্লিষ্ট সরকারি-বেসকারি স্টেকহোল্ডারদের মতামত গ্রহণপূর্বক চূড়ান্ত প্রস্তাবনা শিল্প মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হবে।


Share with :

Facebook Facebook